ঢাকা টু কক্সবাজার বিমান টিকিট। ঢাকা কক্সবাজার বিমান ভাড়া, টিকিট, ফ্লাইট বুকিং সহ সব তথ্য

মোট পড়া হয়েছে 442 

ঢাকা টু কক্সবাজার বিমান টিকিট সম্পর্কে বিস্তারিত

কক্সবাজার বাংলাদেশের দর্শনীয় স্থানগুলোর মধ্যে অন্যতম। বাংলাদেশের দক্ষিন-পূর্বাঞ্চল চট্রগ্রাম বিভাগে অবস্থিত এই থানা শহরের অবস্থিত সমুদ্র সৈকতের সৌন্দর্য শুধু দেশ না দেশের বাইরের ভ্রমনপিয়াসুদের আকৃষ্ট করে। পৃথিবীর সবচেয়ে চাইতে দীর্ঘ সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারে অবস্থিত। যার মোট দৈর্ঘ্য ১৫৫ কিলোমিটার।  একসময় কক্সবাজার পানয়া নামে পরিচিত ছিল এবং এর প্রাচীন নামে পালংক। 

প্রতি বছর বিপুল পরিমাণ দেশি ও বিদেশি পর্যটকদের সমাগম হয় এই দীর্ঘ সমুদ্র সৈকতের দৃষ্টিনন্দনতা উপভোগ করার জন্য। দেশের বাইরের সহ বাংলাদেশের পর্যটকরা ঢাকা এবং চট্রগ্রাম হয়ে কক্সবাজার আসতে হয়।  

বিমান ভ্রমণ চলাফেরার জন্য সবচেয়ে সুবিধাজনক মাধ্যম। একিই সাথে এটি নিরাপদ, এটি দ্রুত, এবং সর্বোপরি অন্যান্য মাধ্যমগুলো থেকে আরামদায়কও বটে।বাংলাদেশের সবগুলো প্রধান বিভাগীয় ও গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলি আকাশ পথে একে অপরের সাথে ভালভাবে সংযুক্ত। যার ফলে আপনি চাইলেই বিমানের মধ্যমে বাংলাদেশের যেকোন শহরে পৌঁছে যেতে পারবেন দ্রুততম সময়ের মধ্যে। কক্সবাজার  পর্যটনের জন্য বাংলাদেশের অন্যতম সেরা শহর হওয়ায় ঢাকা টু কক্সবাজার রুটে বিমানের চাহিদা খুব বেশি। আজকে আমরা এই ব্লগের মাধ্যেমে আপনাদেরকে ঢাকা টু কক্সবাজার বিমান ভাড়া, ফ্লাইট বুকিং সহ বিস্তারিত তথ্য সম্পর্কে বিস্তর ধারণা দেওয়ার চেস্টা করব। 

ঢাকা টু কক্সবাজারের – সড়ক পথ (Dhaka to Cox’s Bazar by Roadways)

ঢাকা থেকে চট্রগ্রাম আসার সবচেয়ে প্রচলিত পন্থা হচ্ছে স্থলপথ। দেশের প্রায়সব সুনামধোন্য পরিবহন সংস্থা ঢাকা থেকে কক্সবাজার রুটে তাদের বাস সার্ভিস পরিচালনা করছে । ঢাকা থেকে কক্সবাজারের দূরত্ব ৪১২ কিলোমিটার । ঢাকা থেলে বাসগুলো প্রথমে চট্রগ্রাম আসে। চট্রগ্রাম থেকে ১৫২ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে কক্সবাজার গিয়ে পোঁছে। ঢাকা থেকে কক্সবাজার স্থল পথে যেতে সাধারণত ৭-১০ ঘণ্টা সময় লাগে।

যেহেতু এটি উপমহাদেশের অন্যতম সেরা পর্যটন স্থান তাই ঈদ, পুজা,নববর্ষ  সহ জাতীয় দিবস থাকলে খুব স্বাভাবিকভাবেই ভ্রমণপিয়াসুদের চাপ কয়েকগুণ বেড়ে যায়। আর যার দরুন ট্রাফিক জ্যামের সৃষ্টি হয়। এই সকল ক্ষেত্রে স্বাভাবিক সময়ের চাইতে দিগুন সময় লাগে কাংখিত গন্তব্য পোঁছাইতে।

ঢাকা টু কক্সবাজার ভ্রমণ – রেলপথ (Dhaka to Cox’s Bazar by Railways)

ঢাকা থেকে কক্সবাজার আপনি রেলপথের মাধ্যমে যেতে পারবেন তবে সেক্ষেত্রে ভোগান্তি বেশি হবে। প্রথমে ঢাকা থেকে চট্রগ্রাম ট্রেনে আসতে হবে এরপর আবার বাসে কক্সবাজার যেতে হবে। তাই এক্ষেত্রে রেলপথকে এড়ানোই শ্রেয় হবে।

ঢাকা টু কক্সবাজার ভ্রমণ – আকাশপথ (dhaka to cox’s bazar by airways)

ঢাকা টু কক্সবাজার ফ্লাইটের সংখ্যা (dhaka to cox’s bazar flight numbers)

বাস বা ট্রেনে কক্সবাজার ভ্রমণটা সময়সাপেক্ষ ব্যাপার হলেও আপনি বিমানের মাধ্যমে আপনার কাংখিত গন্তব্যে পৌছাতে পারবেন বাড়তি ঝামেলা ছাড়া। বাংলাদেশের আভ্যন্তরীণ আকাশ পথে যাত্রী পরিবহনে কক্সবাজার রুট অন্যতম ব্যস্ততম। এই রুটে প্রতিদিন বিমান সংস্থা দ্বারা অন্ততপক্ষে ৭-৮টি ফ্লাইট পরিচালিত হয়। 

ঢাকা টু কক্সবাজার আকাশপথে দূরত্ব (dhaka to cox’s bazar air distance)

স্থল পথে ঢাকা থেকে কক্সবাজারের দূরত্ব ৪১২ কিলোমিটার হলেও আকাশপথে সেটি কমে ৩০৬ কিলোমিটার হয়ে যায়। সেক্ষেত্রে কক্সবাজার পৌছুতে সময় লাগে গড়ে ৫০ মিনিট থেকে ১ ঘণ্টা। এই রুটে বিমানগুলো শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে উড্ডয়ন করে।

ঢাকা থেকে কক্সবাজার বিমান সংস্থার নাম ও চলাচলের সময়

দেশীয় প্রতিটি বিমান সংস্থাই ঢাকা থেকে কক্সবাজার রুটে তাদের একাধিক ফ্লাইট রেখেছে। যেগুলো ফ্লাইট পরিচালনা করে তাদের নাম নিচে দেওয়া হলঃ

  1. নভোএয়ার
  2. বিমান বাংলাদেশ এয়ার লাইন্স
  3. রিজেন্ট এয়ারওয়েজ
  4. ইউ এস বাংলা এয়ারলাইন্স

উপরে উল্লেখিত বিমান সংস্থার মধ্যে সবগুলোই সপ্তাহের প্রতিদিনই ফ্লাইট পরিচালনা করে থাকে। নভোএয়ার সর্বাধিক ২৮টি, ইউএস বাংলা ১৪টি, রিজেন্ট এয়ারওয়েজ ৭টি ও বিমান বাংলাদেশ এয়ার লাইন্স ৭টি ফ্লাইট পরিচালন করে থাকে।

বিমান সংস্থার নামবারফ্লাইট সংখ্যা
বিমান বাংলাদেশ এয়ার লাইন্সশনিবার২টি
ইউএস বাংলাশনিবার২টি
নভোএয়ারশনিবার৪টি
রিজেন্ট এয়ারোয়েজশনিবার১টি
বিমান বাংলাদেশ এয়ার লাইন্সরবিবার১টি
ইউএস বাংলারবিবার২টি
নভোএয়াররবিবার৪টি
রিজেন্ট এয়ারোয়েজরবিবার১টি
বিমান বাংলাদেশ এয়ার লাইন্সসোমবার১টি
ইউএস বাংলাসোমবার২টি
নভোএয়ারসোমবার৪টি
রিজেন্ট এয়ারোয়েজসোমবার১টি
বিমান বাংলাদেশ এয়ার লাইন্সমঙ্গলবার১টি
ইউএস বাংলামঙ্গলবার২টি
নভোএয়ারমঙ্গলবার৪টি
রিজেন্ট এয়ারোয়েজমঙ্গলবার১টি
বিমান বাংলাদেশ এয়ার লাইন্সবুধবার১টি
ইউএস বাংলাবুধবার২টি
নভোএয়ারবুধবার৪টি
রিজেন্ট এয়ারোয়েজবুধবার১টি
বিমান বাংলাদেশ এয়ার লাইন্সবৃহস্পতিবার১টি
ইউএস বাংলাবৃহস্পতিবার২টি
নভোএয়ারবৃহস্পতিবার৪টি
রিজেন্ট এয়ারোয়েজবৃহস্পতিবার১টি

অন্য যেকোন ফ্লাইটের মত ঢাকা থেকে কক্সবাজার রুটের ফ্লাইটেরও সময়ে পরিবর্তন সাতে পারে। যেকোন ধরণের অনিবার্য কারন যেমন যান্ত্রিক ত্রুটি, খারাপ আবহাওয়া, বা অন্য কোন ইমার্জেন্সী কারনে ফ্লাইটের সংখ্যা ও সময়সূচীতে পরিবর্তন আসতে পারে। এক্ষেত্রে সঠিক ও আপডেট নিউজ পাওয়ার জন্য সংস্লিষ্ট এয়ারলাইনসের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন অথবা তাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করতে পারেন।

ঢাকা টু কক্সবাজার বিমান ভাড়া (Dhaka to Cox’s Bazar Air Ticket Price)

বিমান ভাড়া একটা সময় মানুষের নাগালের বাইরে ছিল কিন্তু সময়ের পরিক্রমায় এখন অনেকটাই ক্রয় ক্ষ্মতার ভেতর চলে এসেছে। জরুরী কাজ সারতে অনেকেই সময় বাঁচাতে আকাশ পথে ভ্রমণ করে থাকেন। একাধিক মানসম্পন্ন এয়ারলাইন্স থাকায় খুবই সহজে যাতায়ত করা যাচ্ছে। 

বিমান ভাড়া যেকোন সময় পরিবর্তন হতে পারে। সেক্ষেত্রে ভ্রমণের তারিখ উপর ভিত্তি করে ভাড়া তারতম্য হতে পারে।অনেক সময় ভাড়া কিছুটা কমে যায় বা সময় বিশেষ বেড়েও যেতে পারে। তবে যাত্রীদের জন্য স্বস্তির বিষয় পার্থক্যটা সাধারণত খুব বেশী হয় না।

ঢাকা কক্সবাজার রুটও এর ব্যাতিক্রম না। আমরা চেষ্টা করেছি ঢাকা্যথেকে কক্সবাজার রুটের সবগুলো এয়ারলাইন্সের ভাড়ার একটি তুলনামূলক ধারণা দিতে। এতে করে আমাদের সম্মানিত পাঠকরা ঢাকা কক্সবাজার রুটের বিমান ভাড়া সম্পর্কে বেশ ভালভাবে জানতে পারবেন। উপরন্তু আপনারা সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন কোন এয়ারলাইন্সটা আপনার জন্য উপযোগি হবে।

বিমান সংস্থাসর্বনিন্ম জনপ্রতি ভাড়াসর্ব্বোচ্চ জনপ্রতি ভাড়া 
বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স(Dhaak to Cox’s bazar air ticket price biman bangladesh)৩৫০০-৪০০০ টাকা(সুপার সেভার)১১,০০০(বিজনেস ফ্লেক্সিবল)
নভোএয়ার( Dhaka to cox’s bazar air ticket price Novair)৩৯০০ টাকা(স্পেশাল প্রোমো প্যাকেজ)৯০০০ টাকা ফ্লেক্সিবল
রিজেন্ট এয়ারলাইন্স( Dhaka to Cox’s Bazar Air Ticket Price regent airways)৩৯৯৯ টাকা (স্পেশাল)৯৮০০ টাকা (ইকনমি ফ্লেক্সিবল প্লাস)
ইউএস বাংলা(Dhaka to Cox’s Bazar Air Ticket Price us Bangla)৪২০০ টাকা (প্রফেশনাল ইকোনমি)১০৫০০ টাকা (রেগুলার ইকোনমি)

ঢাকা থেকে কক্সবাজার বিমান টিকিট কিছু সাধারন জিজ্ঞাসা

আকাশ পথে ঢাকা থেকে কক্সবাজারের দূরত্ব ৩০৬ কিলোমিটার।
একটা সময় আকাশ পথে ভ্রমণের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় উদ্বেগ ছিল টিকিট বুকিং পদ্ধতি। কিন্তু ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে এই প্রক্রিয়াটি আগের থেকে অনেক সহজ হয়ে গেছে। টিকেট বুকিং করার জন্য আপনাকে কোথায় গিয়ে লাইন দাড়াতে হবে না আপনি চাইলে ঘরে বসেই খুব সহজেই আপনার কাংখিত টিকেট বুকিং করে নিতে পারেন। সহজ ডট কম, ফ্লাইট এক্সপার্টের মত নির্ভরযোগ্য অনলাইন মাধ্যম ব্যাবহার করে নিমিষেই টিকেট বুকিং সম্পন্ন করে নিতে পারেন। এছাড়া আপনার পছন্দের বিমান অফিস থেকে ঢাকা কক্সবাজার বিমান টিকিট করে নিতে পারবেন। যারা ডিসকাউন্ট পছন্দ করেন, তারা ট্রাভেল এজেন্সি থেকে টিকিট নিতে পারেন। সেক্ষেত্রে কিছু ডিসকাউন্টও পেয়ে যেতে পারেন। বাংলাদেশের অনলাইন ট্রাভেল এজেন্সি গুলোর মধ্যে ফ্লাইট এক্সপার্ট অন্যতম।
ঢাকা থেকে কক্সবাজারের উদ্দ্যেশে যাওয়া প্রথম ফ্লাইটের নাম নভোএয়ার ৯২১। এটি সকাল ৭ঃ৩০ সময় ঢাকা থেকে কক্সবাজারের উদ্দ্যেশে রওনা হয়।
বাংলাদেশে অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটের জন্য, একজন ইকোনমি ক্লাসের যাত্রী ২০ কেজি চেক করা লাগেজ এর সাথে ৭ কেজি কেবিন লাগেজ বহন করতে পারবেন। অন্যদিকে একজন বিজনেস শ্রেণীর যাত্রী ৭ কেজি কেবিন লাগেজের সাথে ৩০ কেজি চেক করা মালামাল সাথে বহন করতে পারেন। এই সীমার বাইরে কোনো অতিরিক্ত মালামালের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত চার্জ প্রযোজ্য হবে।
জেনে রাখা ভালো দেশের ভেতর বিমান ভ্রমণের জন্য পাসপোর্টের প্রয়োজন হবে না। তাই বিমান ভ্রমণের ক্ষেত্রে ইমিগ্রেশনের মত বাড়তি কোন ঝামেলা নেই। নিরাপত্তার খাতিরে শুধু আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রটি সাথে থাকলেই এইক্ষেত্রে যথেষ্ট।
দিনের সবচেয়ে শেষে যে ফ্লাইটটি কক্সবাজারের উদ্দ্যেশে যায় সেটির নাম হচ্ছে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স ১৪৯। এটি দুপুর ৩.৩০ সময় ঢাকা থেকে কক্সবাজারের জন্য ছেড়ে যায়।
অনেক বিজনেস ক্লাস এয়ারলাইন্স যাত্রীদের বিশ্রাম বা ঘুমানোর জন্য অতিরিক্ত জায়গা প্রদান করে।
হ্যাঁ, আপনি আপনার নিজের খাবার বহন করতে পারেন। তবে এটি মাথায় রাখতে হবে অবশ্যই আপনাকে খাবার সঠিকভাবে প্যাক করতে হবে যাতে পাশের যাত্রীদের কোন অসুবিধা না হয়।
হ্যাঁ, যাত্রীরা অনলাইনে ওয়েব চেক-ইন বা এয়ারপোর্ট চেক-ইনের মাধ্যমে তাদের ঢাকা টু কক্সবাজার ফ্লাইটের মাধ্যমে একটি ওয়েব চেক-ইন বিকল্প পাবেন।
অনেক ওয়েবসাইট আছে যারা অনলাইনে হোটেল বুকিং সেবা প্রদান করে থাকে। আপনি চাইলে খুব সহজেই আপনার বাজেট অনুসারে কক্সবাজার বিমানবন্দরের কাছাকাছি একটি হোটেল বুক করে নিতে পারেন।
বিমানে ঢাকা থেকে কক্সবাজার যেতে ৫০ মিনিট থেকে ১ ঘণ্টা সময় লাগে। যা
সাধারণত ঢাকা থেকে কক্সবাজার প্রতি সপ্তাহে ৫৫টি ফ্লাইট যায়।
আকাশ পথে ঢাকা থেকে কক্সবাজারের সর্বনিন্ম মুল্যের প্যাকেজ হচ্ছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের সুপার সেভার প্যাকেজ। যার মুল্য ৩৫০০ টাকা।
ঢাকা থেকে কক্সবাজারের সবচেয়ে ব্যয়বহুল প্যাকেজও বিমান বাংলাদেশ এয়ালাইন্সের। তাদের এই প্যাকেজের নাম বিজনেস ফ্লেক্সিবল। যার মুল্য হচ্ছে ১১,০০০ টাকা।
দেশে বিদ্যমান প্রতিটি বিমান সংস্থাই এই রুটে তাদের ফ্লাইট পরিচালনা করে। তারা হচ্ছে বিমান বাংলাদেশ এয়ার লাইন্স, রিজেন্ট এয়ারলাইন্স, নভোএয়ার ও ইউএস বাংলা।
বাংলাদেশে মোট চারটি এয়ারলাইন্স আছে। তবে এদের মধ্যে ইউ-এস বাংলাকে বেছে নেওয়ার প্রধান কারন হচ্ছে তাদের বিশ্বমানের সার্ভিস। এছাড়া তাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা আপনাকে আশ্বস্ত করবে।
বাংলাদেশের জনপ্রিয় পর্যটনের অঞ্চলগুলোর মধ্যে কক্সবাজার অন্যতম সেরা। নৈসর্গিক সৌন্দর্য্যের জন্যে বিখ্যাত বিশ্বের সর্বাধিক দীর্ঘ সমুদ্র সৈকত ছাড়াও এইখানে রয়েছে আরও অনেক দর্শণীয় স্থান ও স্থাপনা। বিভিন্ন উপজাতি জনগোষ্ঠীর বসবাসে বৈচিত্রময় এই জেলার দর্শনীয় স্থানের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো সোনাদিয়া দ্বীপ, কুতুবদিয়া দ্বীপ, সুগন্ধা বীচ, লাবনী বীচ, কলাতলি বীচ, হিমছড়ি, ইনানী বীচ, মেরিন রোড, সেন্টমার্টিন, রামু বৌদ্ধ বিহার, মহেশখালী ইত্যাদি।
শেয়ার করুন

৩ thoughts on “ঢাকা টু কক্সবাজার বিমান টিকিট। ঢাকা কক্সবাজার বিমান ভাড়া, টিকিট, ফ্লাইট বুকিং সহ সব তথ্য

  • আগস্ট ১৭, ২০২১ at ৩:১৭ অপরাহ্ণ
    Permalink

    রিজেন্ট এয়ারওয়েজে সবচেয়ে ভালো

    Reply
    • আগস্ট ১৮, ২০২১ at ৪:১৫ অপরাহ্ণ
      Permalink

      Thanks for your opinion

      Reply
  • আগস্ট ১৭, ২০২১ at ৯:৪৩ অপরাহ্ণ
    Permalink

    Very informative blog posts. Thanks to the creator for sharing important information about dhaka to cox’s bazar air tickets

    Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *