বিয়ানীবাজারে ‘রেড জোন’ কার্যকরে কাল থেকে শুরু হচ্ছে অভিযান

বিয়ানীবাজারের ডাক ডেস্কঃ

মরণঘাতী করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে এলাকাভিত্তিক লকডাউনের উদ্যোগ নেওয়ার পর দেশের বিভিন্ন অঞ্চলকে রেড, ইয়েলো ও গ্রিন জোনে চিহ্নিত করা হয়েছে। ইতোমধ্যে সিলেট বিভাগের চার জেলাকেই ‘রেড জোন’ হিসেবে ঘোষণা করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রাণালয়। সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে আক্রান্তের আধিক্য বিবেচনায় রেড জোন, ইয়েলো জোন ও গ্রিন জোন হিসেবে বাস্তবায়ন করা হবে স্বাস্থ্যবিধি ও আইনি পদক্ষেপ।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে সিলেটেও করোনার বিস্তার রোধে স্বাস্থ্যবিধি ও শারীরিক দূরত্ব রক্ষায় জোরদার অভিযান চালাবে জেলা প্রশাসন। সেনাবাহিনী এবং স্থানীয় উপজেলা ও পুলিশ প্রশাসনের সহায়তায় চালানো হবে এসব অভিযান। এর জন্য জেলা প্রশাসন গঠন করেছেন ৭টি স্প্যাশাল টিম। তবে এর জন্য নতুন করে লকডাউন নির্দেশনা আসছে না, আগের নির্দেশনার ভিত্তিতেই চালানো হবে অভিযান।

এ বিষয়ে সিলেটের অতিরিক্ত জেলা মেজিস্ট্রেট (এডিএম) এ.এইচ.এম মাসুদুর রহমান বলেন, লকডাউনের জন্য নতুন কোনো নির্দেশনা আসবে না। আগের নির্দেশনার ভিত্তিতেই এখন ‘রেড জোন’ সিলেটে অভিযান চালানো হবে। এ সময় অভিযানকারী টিমের নেতৃত্ব দানকারী ম্যাজিস্ট্রেট লোকজনকে বিনা প্রয়োজনে ঘর থেকে বাহিরে বের না হতে নিরুৎসাহিত করবেন এবং স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘনকারীদের শাস্তির আওতায় নিয়ে আসবেন।

তিনি বলেন, স্বাস্থ্যবিধি রক্ষায় আগামীকাল মঙ্গলবার (৯ জুন) থেকে এসএমপি’র ৬টি থানাপুলিশের সহায়তায় সিলেট মহানগর এলাকায় ৭টি টিমে ভাগ হয়ে জোরদার অভিযান পরিচালনা করবে জেলা প্রশাসন। এছাড়াও বিয়ানীবাজার উপজেলাসহ অন্যান্য উপজেলায় স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনকে নিয়ে কঠোরভাবে অভিযান চালাতে নির্বাহী কর্মকর্তাদের প্রতি নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

                 আরোও পড়ুনঃ করোনা সন্দেহে অসুস্থ মাকে হাসপাতালের গেটে ফেলে ছেলে উধাও

ঈদের আগে সরকারি নির্দেশনায় ‘সীমিত আকারে’ দোকানপাট-মার্কেট খুলে দেয়ার সুযোগে কোনো ধরনের স্বাস্থ্যবিধি না মেনে ভিড় করে সিলেটে কেনাকাটা করেন লোকজন। ঈদের আগের দিন পর্যন্ত সিলেটে খোলা মার্কেটগুলোতে নারী-পুরুষ-শিশুদের ছিলো উপচেপড়া ভিড়। এ অবস্থা দেখে ঈদের পরে সিলেটে ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন বিশেষজ্ঞরা। সেই আশঙ্কাকে সত্যি করে এখন সিলেটে প্রতিদিনই করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন অর্ধশতাধিক মানুষ।

আক্রান্তের দিকে থেকে প্রতিদিন করোনা ভাঙছে আগের রেকর্ড, প্রতিদিন কেড়ে নিচ্ছে একাধিক প্রাণ। গত ১ জুন সিলেট বিভাগে একদিনে মারা যান ৫ জন। যা এখন পর্যন্ত সিলেটে ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ মৃত্যুর সংখ্যা। ৫ জনের এ রেকর্ড আজ (৮ জুন) পর্যন্ত না ভাঙলেও কোনোদিনই সিলেটকে ছাড় দিচ্ছে না মরণব্যধি করোনা, দীর্ঘ করছে লাশের সারি।

এই অবস্থায় সিলেটকে করোনার রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। গত শনিবার (৬ জুন) স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে সর্বশেষ আপডেট করা তালিকা অনুযায়ী সিলেটসহ দেশের তিনটি বিভাগ, ৫০টি জেলা ও ৪০০টি উপজেলাকে পুরোপুরি লকডাউন (রেড জোন বিবেচিত) দেখানো হচ্ছে। সেই তালিকায় সিলেট বিভাগের চার জেলা- সিলেট, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ ও মৌলভীবাজারকে দেখানো হয় পুরোপুরি লকডাউন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.