বিয়ানীবাজারে করোনার উপসর্গ নিয়ে বৃদ্ধার মৃত্যু

মোট পড়া হয়েছে 160 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

বিয়ানীবাজার উপজেলার মোল্লাপুর ইউনিয়নের পাতন কাচাটুল গ্রামে করোনার উপসর্গ নিয়ে আফতারুন নেসা (৭৫) নামের এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে। রবিবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার মুল্লাপুর ইউনিয়নের পাতন-কাছাটুল গ্রামের নিজ বাড়িতে ওই বৃদ্ধার মৃত্যু হয়। তিনি গত চারদিন থেকে কাশি, শ্বাসকষ্ট ও সর্দি-জ্বরে ভোগছিলেন। মৃত্যুর পর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বশীলদের পক্ষ থেকে তার করোনা নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

নিহেতের ছেলে ছমির উদ্দিন জানান, সোমবার তার মায়ের করোনার নমুনা পরীক্ষা করতে দেয়ার কথা ছিল। এর আগে রবিবার দুপুরে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

এদিকে স্থানীয়ভাবে জানা যায়, করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত ওই বৃদ্ধার মরদেহের গোসল দেয়া হয় মৃত্যুর ৩ ঘন্টা পর। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে দেয়া নির্দেশণা মোতাবেক তাকে নির্দিষ্ট সময় পর গোসল দেয়ার ব্যবস্থা করেন স্বজনরা। তবে মরদেহের গোসল ও দাফন কাজে অংশ নেয়াদের কাছে হ্যান্ড গ্লাভস, স্যানিটাইজার ও প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে প্রদান করা হয়। ৩ ঘন্টা বা নির্দিষ্ট সময় পর করোনায় আক্রান্ত মৃত ব্যক্তির শরীর থেকে ভাইরাস ছড়ায় না বলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার একটি নির্দেশণা রয়েছে। এই নির্দেশণার আলোকে ওই বৃদ্ধার মরদেহের গোসল নির্দিষ্ট সময় পর করতে নির্দেশণা দেয়া হয় বলে জানা গেছে।

বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. আবু ইসহাক আজাদ বলেন, আমরা খবর পেয়ে দ্রুত ওই বৃদ্ধার বাড়িতে যাই এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে নির্দিষ্ট সময় পর মরদেহের গোসল করাতে নির্দেশণা দেই। তবে নিহতের পরিবারের সদস্যদের অনীহায় আমরা দাফন কাজে অংশ নিচ্ছিনা।

তিনি বলেন, আমরা এলাকায় মাইকযোগে ওই বৃদ্ধার দাফনসহ জানাযার নামাজে অল্প সংখ্যক লোকের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে প্রচারণা চালিয়েছি। একইসাথে স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে দাফন কাজে অংশ নেয়ার কথা বলেছি। স্থানীয় চেয়ারম্যানসহ অন্যরা বিষয়টি দেখভাল করবেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *