নস্টালজিয়া এক বোহেমিয়ান বন্ধুর কাহিনী

মোট পড়া হয়েছে 234 

মোহাম্মদ শামছ উদ্দিন

এমনি ছিলো মেঘলা আকাশ,
বৃষ্টি আসার অপেক্ষায়,
জীবন ছিল ফুলের মতো,
কুড়ি ফোঁটার প্রতীক্ষায়।

আমি তখন বৈশাখী ঝড়,
নবযৌবনা প্রলয়ংকর,
তোমার আকাশ জোড়ে থাকা
এক রুদ্ররূপী ভয়ংকর।

শিমুল ফোঁটা রঙের খেলায়,
কেটেছে দিন দিনান্ত,
ভয় করিনি শাসন-ত্রাসন,
তপ্ত হৃদয় অশান্ত।

হাজারো স্বপ্নের হাজারো বীজ,
বপন করিনু দু’জনে,
শালের বীথিকায় সুর বেঁধেছি,
বিরহী পাখির কুজনে।

সপ্ত সুরে বেঁধেছিনু তান,
গেয়েছিনু হৃদি মাঝারে,
সেই সুর আজ কোথা গেছে ভেসে,
আকাশ ঘিরেছে আঁধারে।

ঘুম জাগানিয়া সেই সুর আজো,
বাজে অনন্ত আকাশে,
মেঘলা দিনের একলা বুকে,
হাহাকার করা হুতাসে।

স্মৃতির রুমাল মলিন খামে
আজো রয়ে আছে জমা,
ফুলেল সুবাস যতই ঢালি
প্রস্ফুটিত হয় ক্ষমা।

যতই দুরে সরে যাই কেবল,
ফের আসি নব সাজে,
আমার জটিল জীবন-বীণা,
এক তারে ই বাজে।

অনন্ত নক্ষত্র বীথি,
দুরে দুরেই থাক,
ভুলে যাওয়া ধ্রুবতারা,
সুদুরেই মিলাক।

অপেক্ষমান মেঘলা আকাশ,
অপেক্ষায়ই থাকো,
বিস্মরনের জলছাপ,
মুছে যাবে নাকো।

ঘুঘু ডাকা ভর দুপুরে,
পড়বে মনে আমায়,
বৃষ্টি ভরা মেঘলা আকাশ,
ঝরবে অজোর ধারায়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.