প্রাণঘাতী করোনাকালে জালালাবাদ এসোসিয়েশন : মানবিকতার অনন্য দৃষ্টান্ত

বিয়ানীবাজারের ডাকঃ

নিজেদের ক্ষুদ্র জীবনকে তুচ্ছ করে, বৈশ্বিক মহামারীকালে জীবন মরণ নিয়ে উদ্বিগ্ন অতংকিত বিপদগ্রস্ত মানুষের পাশে যারা দাঁড়ায় তারাই সত্যিকারের মানবিকগুণের মানুষ। এই সকল কাজ সবাই করতে পারেনা। যারা করেন তাঁরা সত্যিকারের দুঃসাহসী হয়। প্রাণঘাতী করোনা ক্রান্তিকালের দুর্যোগে দুর্বিপাকে যারা মানবতারটানে ঘরে ছেড়ে, মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে আশা জাগিয়েছেন। সহানুভূতির হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। সুস্থভাবে বেঁচে থাকার স্বপ্ন দেখান। অজানা ভয় ভীতি শঙ্কাকে জয় করতে অনুপ্রেরণা যোগান। মনে শক্তি ও সাহস যুগিয়েছেন। নিঃশর্ত মানবিক সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দেন। তাঁরাই সত্যিকারের মানবিক মানুষ। আর এই মানবিক দৃষ্টান্তের কাজটুকু করতে পেরেছেন, জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব আমেরিকা ইনক্ এর নেতৃবৃন্দ। করোনা কালিন সময়ে তাঁদের এই মহৎ কাজগুলো দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।

গতকাল সোমবার দুপুর থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ধারাবাহিক কার্যক্রমের অংশ হিসেবে জামাইকাস্থ হিলসাইড অ্যাভিনিউয়ের ওয়ান হান্ড্রেড সিক্সটি এইটে জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন অব আমেরিকা ইনকের উদ্যোগে ফ্রী অ্যান্ট্রিবডি টেস্টিং ও মাস্ক ও হ্যান্ড সেনিটাইজার বিতরনকালে কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ ও বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ এই কথাগুলো বলেন।

জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব আমেরিকা ইনকের সভাপতি মইনুল হক চৌধুরী হেলাল সাহেবের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান চৌধুরী শেফাজের পরিচালনায় মানবিক কার্যক্রমের সমাপনী সভায় কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের চলমান কার্যক্রমের প্রশংসা করে বলেন, আগামী দিনের যে কোন কার্যক্রম ও কর্মকাণ্ডে তাঁদের সহায়তা সহযোগীতা ও অংশগ্রহণ অব্যাহত রাখবেন। জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের মানবিক কার্যক্রমে বৃত্তবান মানুষদের এগিয়ে আশার আহবান জানান উপস্থিত নেতৃবৃন্দ। প্রাণঘাতী করোনাক্রান্তিকালে জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন অসামর্থবান মানুষের জন্য বিনামূল্যে কবর প্রদান, চিকিৎসা সহায়তা ও খাদ্যসহায়তা দিয়ে অনন্য নজির সৃষ্টি করেছে।

জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ তাঁদের বক্তব্যে বলেন, মানবিক এই কার্যক্রম এখনও অব্যাহত রয়েছে। সিলেট বিভাগবাসীর যে কোন সমস্যা ও সংকটে জালালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন নেতৃবৃন্দ কমিউনিটির পাশে থাকার জন্য অঙ্গীকারবদ্ধ।

অনুষ্টানে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সভাপতি মইনুল হক চৌধুরী হেলাল, সহ-সভাপতি আহবাব চৌধুরী খোকন, শফি উদ্দীন তালুকদার, মনজুর চৌধুরী জগলু, জুসেফ চৌধুরী, কোষাধক্ষ্য মইনুল ইসলাম, সাহিত্য ও সাংকৃতিক সম্পাদক শরিফুল হক মনজু, মহিলা সম্পাদিকা সুতিপা চৌধুরী, কার্যকরী সদস্য হেলিম উদ্দীন। অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এ্যটর্নী মইন চৌধুরী, জ্যামাইকা বাংলাদেশ ফ্রেন্ড সোসাইটির সভাপতি ফখরুল ইসলাম দেলোয়ার, এটর্নী সোমা সাইদ, সিলেট সদর থানা সমিতির সভাপতি দেওয়ান সাহেদ চৌধুরী, কাতার জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি নজরুল ইসলাম, সাবেক উপদেষ্টা সৈদুর নুর, হবিগঞ্জ জেলার সাবেক শিক্ষা অফিসার গাফফার আহমেদ, জালালাবাদ এসোসিয়েশনের সাবেক সহ-সভাপতি মৌলানা সাইফুল আলম সিদ্দিকী, তোফায়েল আহম্মেদ চৌধুরী, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আমিনুল ইসলাম চুন্নু, সাবেক চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী বেলাল, সিলেট সদর সমিতির উপদেষ্টা শাহনুর কুরেশী, সাবেক প্রচার সম্পাদক আব্দুল করিম, হবিগঞ্জ জেলা কল্যাণ সমিতির সাবেক সাধারন সম্পাদক রেজাউল আজাদ ভুঁইয়া, সাধারন সম্পাদক আকবর হুসেন, সুনামগঞ্জ জেলা সমিতির সাধারন সম্পাদক তৌফিকুল আম্বিয়া টিপু, সিলেট সদর সমিতির সাধারন সম্পাদক হুমায়ুন চৌধুরী, বাংলাদেশ কালচারাল এসোসিয়েশনের প্রচার সম্পাদক চৌধুরী তানিম, হবিগঞ্জ সদর সমিতির সাধারন সম্পাদক আবুল কালাম, সাহেদ আহমদ প্রমুখ।

এন্টিবডি টেষ্টিং স্পনসর করার জন্য সংগঠনের সদস্য রোকন হাকিম ও মান্না মুনতাসিরকে জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। হোমকেয়ার ও হাকিম এন্ড কোং প্রতিষ্ঠানের সফলতা কামনা করা হয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.