করোনা চিকিৎসার নামে মানুষের পকেট কাটছে সিলেট নর্থইস্ট ও মাউন্ট এডোরা হাসপাতাল

মোট পড়া হয়েছে 152 

বিয়ানীবাজারের ডাক ডেস্কঃ

সিলেটে করোনা সংক্রমণের এই দুর্যোগের সময়ে বেসরকারি কিছু হাসপাতাল জনগণের চিকিৎসা প্রদানে শুরু থেকেই নিষ্ক্রিয় থেকে গণবিরোধী আচরণ করে আসছে। এখন আবার চিকিৎসার নামে অস্বাভাবিক বিল করে জনগণের গলাকাটা ও পকেট কাটার মহাউৎসব চালাচ্ছে। অঘোষিত বাণিজ্যে মেতে ওঠেছে নর্থইস্ট হাসপাতাল ও মাউন্ট এডোরা হাসপাতাল। করোনার রিপোর্ট নেগেটিভ আসার পরও রোগীকে জোর করে ঢুকিয়ে দেওয়া হচ্ছে ‘করোনা সাসপেক্টেড ইউনিটে’। এরপর সুরক্ষা সামগ্রী, ওষুধপত্রসহ নানা কারণ দেখিয়ে আদায় করা হচ্ছে মাত্রাতিরিক্ত ফি।
বিল দিতে না পারলে রোগীর লাশ আটকে রাখার মতো নির্মম ঘটনাও ঘটছে। চিকিৎসার নামে হাসপাতালগুলো বাণিজ্যে মেতে ওঠলেও রহস্যজনক কারণে স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তাদের কোন তৎপরতা চোখে পড়ছে না। এসব হাসপাতাল-ক্লিনিকসমূহের গণবিরোধী অমানবিক আচরণ বন্ধে এগুলোর লাইসেন্স বাতিলসহ মালিকদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে দাবী উঠেছে সচেতন মহল থেকে।

নগরীরর নর্থইস্ট ও মাউন্ট এডোরা হাসপাতালে শ্বাসকষ্টের রোগী পেলেই রোগের ইতিহাস বা কোভিড পরীক্ষার ফলাফল আমলে না নিয়েই চিকিৎসা শুরু করা হয় কোভিড প্রটোকলে বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীদের। এতে শুধু সুরক্ষা সামগ্রীর বিল বাবত প্রতিদিন রোগীকে ৪ হাজার টাকা থেকে সাড়ে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত গুণতে হচ্ছে। এছাড়া কোভিড প্রটোকলের জন্য চিকিৎসকের ভিজিট থেকে শুরু করে ওয়ার্ড ও কেবিনের বিল বাবত অতিরিক্ত টাকা পরিশোধ করতে হচ্ছে রোগীদের।
গত ৩ সেপ্টেম্বর গভীর রাতে দক্ষিণ সুরমার সিলামের নাসির উদ্দিন শ্বাসকষ্টের চিকিৎসা নিতে আসেন নর্থইস্ট মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালে। সাথে নিয়ে আসেন করোনা ‘নেগেটিভ’ সার্টিফিকেট।

কিন্তু ‘নেগেটিভ সার্টিফিকেট’ অগ্রাহ্য করে ওই রোগীকে ভর্তি করা হয় করোনা সাসপেক্টেড ইউনিটে। কোভিড প্রটোকলে দেওয়া হয় চিকিৎসা। পরদিন রাতে অবস্থার অবনতি হলে প্লাজমা দেওয়ার জন্য রোগীর স্বজনদের চাপ সৃষ্টি করা হয়।
কিন্তু করোনা শনাক্ত না হওয়ায় স্বজনরা প্লাজমা দিতে অস্বীকৃতি জানান। ৪ সেপ্টেম্বর দিনগত রাত ৪টার দিকে ওই রোগী মারা গেলে স্বজনদের হাতে ধরিয়ে দেওয়া হয় ৭৭ হাজার ৪৭২ টাকার বিল। দুইদিনের চিকিৎসার বিলে পিপিইসহ সুরক্ষা সামগ্রীর মূল্য ধরা হয় সাড়ে ৮ হাজার টাকা। এদিকে, বিল দিতে না পারায় পরদিন সকাল সাড়ে ৯টা পর্যন্ত লাশ আটকে রাখেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

সৌজন্যেঃ সুরমা নিউজ ২৪ ডট নেট

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *