সোমবার থেকে মার্কেট শপিংমল ও বিনোদন কেন্দ্র বন্ধ রাখার নির্দেশ!

মোট পড়া হয়েছে 158 

বিয়ানীবাজারের ডাকঃ

করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার থেকে তিন দিন সারা দেশে গণপরিবহন বন্ধ রাখার ঘোষণা এসেছে।

এসময় মার্কেট, শপিংমল, বিনোদন কেন্দ্র ও কমিউনিটি সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশনাও এসেছে।

রোববার বিকালে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, সোমবার সকাল ৬টা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত এ নির্দেশনা বলবৎ থাকবে। নির্দেশনায় বলা হয়েছে, আগামী সোমবার সকাল ৬টা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত এ নির্দেশনা বলবৎ থাকবে।

সারা দেশে পণ্যবাহী যানবাহন ও রিকশা ব্যতিত সব গণপরিবহন বন্ধ থাকবে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নিয়মিত টহলের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিৎ করবে।

সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে শুধুমাত্র প্রয়োজনীয় সংখ্যক কর্মকর্তা-কর্মচারীর উপস্থিতি নিশ্চিত করতে নিজ নিজ অফিসের ব্যবস্থাপনায় তাদের আনা-নেওয়া করতে হবে।

গত ২১ জুন করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় মানিকগঞ্জ, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, মাদারীপুর, গোপালগঞ্জ ও রাজবাড়ী জেলায় কঠোর লকডাউন ঘোষণা করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

সেদিন রাতেই ঢাকা থেকে সারা দেশের বাস চলাচল বন্ধ ঘোষণা করে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ ঢাকা থেকে সব রুটের নৌ-যান চলাচল বন্ধের নির্দেশনা দেয়।

দেশে ডেল্টা ভেরিয়েন্টের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ার প্রেক্ষিতে কোভিড-১৯ বিষয়ক জাতীয় কারিগরি কমিটি সারা দেশে কঠোর লকডাউন জারির পরামর্শ দেয়। জরুরি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের যানবাহন ব্যতিত সব ধরণের গণপরিবহন বন্ধের জন্য সরকারের প্রতি অনুরোধ জানান কমিটির সদস্যরা।

গত ২৫ জুন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানান, আগামী ২৮ জুন সকাল ৬টা থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সারাদেশে কঠোর লকডাউন জারি থাকবে। এ সময় জরুরি পরিষেবা ছাড়া সরকারি ও বেসরকারি সব অফিস বন্ধ থাকবে এবং জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বের হওয়া যাবে না।

পরে বুধবার পর্যন্ত কঠোর লকডাউন শিথিল করে ‘সীমিত পরিসরে’ কার্যকর করার কথা জানানো হয় সরকারের পক্ষ থেকে। আগামী বৃহস্পতিবার থেকে ৭ দিনের জন্য পুরোপুরি লকডাউনে থাকবে দেশ।

লকডাউন ঘোষণায় গণপরিবহন বন্ধ হয়ে গেলেও সড়কে ঘরমুখো মানুষের ঢল থেমে নেই। মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ও মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ঘাটে স্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা না করে ফেরিতে গাদাগাদি করে নদী পারাপার হচ্ছে মানুষ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *