সুনামগঞ্জে নৌ-অ্যাম্বুলেন্স ‘মাতৃসেবা তরী’র যাত্রা শুরু

মোট পড়া হয়েছে 246 

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুরে দুর্গম ফতেহপুর ইউনিয়নে মাতৃসেবা তরী নামে প্রসূতি মায়েদের প্রাথমিক চিকিৎসা সহায়তায় একটি বেড, চিকিৎসা কিট, অক্সিজেন সিলিন্ডার সংযুক্ত একটি নৌ-অ্যাম্বুলেন্স চালু করেছে উপজেলা প্রশাসন। স্থানীয়রা জানান, উপজেলার সবচেয়ে দুর্গম এলাকা ফতেহপুর ইউনিয়ন। শীত-গ্রীষ্ম-বর্ষা সব সময় এলাকার মানুষ যোগাযোগের সংকটে থাকেন। বর্ষাকালে এই দুর্ভোগ আরও বেড়ে যায়। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও উপজেলা শহরের সঙ্গে ছয় মাস এই এলাকার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন থাকে। তাই প্রসূতি মায়েরা স্বাস্থ্যসেবা পান না।

সম্প্রতি উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা বিষয়টি উপজেলা পরিষদের সাধারণ সভায় নজরে আনেন। এরপর বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিউর রহিম জাদীদ ও ফতেহপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান রঞ্জিত চৌধুরী রাজন এগিয়ে আসেন। তাদের উদ্যোগে একটি নৌ-অ্যাম্বুলেন্স তৈরির সিদ্ধান্ত হয়। ফতেহপুর ইউনিয়ন পরিষদের আর্থিক সহযোগিতায় নৌ-অ্যাম্বুলেন্সটি তৈরি হয়েছে। সোমবার (৫ জুলাই) মাতৃসেবা তরী নামে নৌ-অ্যাম্বুলেন্সটি উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হয়। নৌ-অ্যাম্বুলেন্সটিতে প্রসূতি মায়েদের চিকিৎসা সহায়তা স্বরূপ একটি বেড, চিকিৎসা কীট, অক্সিজেন সিলিন্ডার সংযুক্তসহ অন্যান্য সুযোগ সুবিধা রয়েছে।

সোমবার দুপুরে ‘মাতৃসেবা তরী’ নামের এ নৌ-অ্যাম্বুলেন্সটির উদ্বোধন করেন বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিউর রহিম জাদীদ,সহকারী কমিশনার (ভূমি) সজল মোল্লা, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোহাম্মদ আব্দুর রহমান,ফতেহপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রঞ্জিত চৌধুরী রাজন, ধনপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হযরত আলী কালারচান, সলুকাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নুরে আলম সিদ্দিকী তপন, পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের সামসুল আলম ওয়াসিম, ইফতেখার জামানসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা।

চালু হওয়া নৌ-অ্যাম্বুলেন্স সম্পর্কে বাগগাঁও গ্রামের রহিমা খাতুন জানান, বর্ষাকালে চারদিক পানিতে থই থই করে। নৌকার অভাবে স্বাস্থ্যসেবার জন্য মা ও শিশুরা হাসপাতালে যেতে পারেন না। নৌ-অ্যাম্বুলেন্স চালু হওয়ায় এলাকার প্রসূতি মায়েদের উপকার হবে।

ফতেহপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রণজিৎ চৌধুরী রাজন বলেন, ‘ফতেহপুর ইউনিয়নের দুর্গম ৪৮টি গ্রামের প্রসূতি মা ও শিশুরা ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের মাধ্যমে এই অ্যাম্বুলেন্স সেবা পাবেন।’

বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিউর রহিম জাদীদ জানান, প্রসূতি মায়েদের জন্য বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা প্রশাসন এবং ফতেহপুর ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে এই নৌ-অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *