সিলেটে অতিরিক্ত যাত্রী ভাড়া নিলে ৯৯৯-এ কল দেয়ার পরামর্শ

মোট পড়া হয়েছে 9,335 

বিয়ানীবাজারের ডাক ডেস্কঃ

মহামারি শেষে স্বাভাবিক ভাড়ায় ফেরার কথা থাকলেও সিলেটে অটোরিকশা ভাড়ায় নৈরাজ্যের অভিযোগ গড়িয়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও। অনেক সময় কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে হাতাহাতির ঘটনাও ঘটছে। এমন অবস্থায় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করে যাত্রী অধিকার পরিষদ সিলেটের পক্ষ থেকে মানববন্ধন করা হয়েছে। এ মানববন্ধনে অটোরিকশার অতিরিক্ত ভাড়া আদায় বন্ধ করে যাত্রীদের পাশে দাঁড়াতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন নেতৃবৃন্দ। এমনকি সিলেট নগরজুড়ে রাজত্ব করা নম্বরবিহীন অটোরিকশার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতেও দাবি জানান তারা।

এদিকে সিলেট জেলা অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি জাকারিয়া আহমদ বলেন, ‘অটোরিকশায় তিনজন যাত্রী বহনের নিয়ম থাকলেও সিলেটে অলিখিতভাবে পাঁচজন যাত্রী বহন করে থাকি। দীর্ঘদিন থেকে এভাবে যাত্রী বহন করে আসছি। কিন্তু ১১ আগস্ট থেকে কঠোর বিধিনিষেধ শিথিল হলেও অটোরিকশায় সমপরিমাণ যাত্রী বহন করতে দিচ্ছে না সিলেটের ট্রাফিক পুলিশ। বিধিনিষেধ শিথিলের পর অন্তত ১ হাজার মামলা দিয়েছে পুলিশ প্রশাসন। তাই বাধ্য হয়েই তিনজন যাত্রীর কাছ থেকে পাঁচজনের ভাড়া আদায় করা হচ্ছে।’

অপরদিকে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (গণমাধ্যম) বিএম আশরাফ উল্যাহ তাহের বলেন, ‘আইনত অটোরিকশার পেছনের আসনে মাত্র ৩ জন যাত্রী বহনের কথা। আর এ অনুযায়ী সরকার থেকে ভাড়াও নির্ধারণ করা আছে। কিন্তু দীর্ঘদিন থেকে অটোরিকশাগুলো অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছিল। তাই আইনের বাইরে কোনো অটোরিকশাকে এখন যাত্রী বহন করতে দেয়া হচ্ছে না।’

এ অবস্থায় কোনো অটোরিকশা অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করলে যাত্রীদের ৯৯৯ নম্বরে কল দেয়ার পরামর্শ দেন এবং সড়কে চলতি অবস্থায় দায়িত্বরত ট্রাফিককে অবহিত করলে সড়ক আইনে মামলা দেয়া হবে বলেও জানান পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (গণমাধ্যম) বিএম আশরাফ উল্যাহ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *