ফেসবুক স্টোরিকে ব্যবহার করে কিভাবে অনলাইন বিজনেসের সেল বাড়ানো যায়? 

মোট পড়া হয়েছে 90 

ফেসবুকের পেইজের মাধ্যমে অনলাইন বিজনেস সারা বিশ্বে জনপ্রিয় হয়ে ওঠছে। যার ফলে অনেকেই এই বিজনেসের দিকে ঝুঁকছে। যত দিন যাচ্ছে ভিড়ের মধ্যে বিজনেজকে টিকিয়ে রাখার চ্যালেঞ্জ ঠিক ততটাই বাড়ছে। সেক্ষেত্রে বিজনেসকে এগিয়ে নিতে হলে অবশ্যই এক ধাপ এগিয়ে থাকবে। ফেসবুকের সকল সুযোগ-সুবিধাগুলোর যথার্থ ব্যবহার করতে হবে। এমনই একটি গুরুত্বপূর্ণ ফিচার হচ্ছে ফেসবুক স্টোরি

ফেসবুক স্টোরি ২০১৬ সালে প্রথম ফেসবুক কর্তৃক চালু হয়েছিল এবং সময়ের সাথে সাথে এটি একটি অত্যাবশ্যকীয় ফিচারে পরিণত হয়েছে। সোশ্যাল মার্কেটারদের মধ্যে যারাই নিজেদের ব্যবসাকে শীর্ষে রাখতে বদ্ধ পরিকর তাদেরকে অবশ্যই মার্কেটিংর সাম্প্রতিক পরিবর্তনের সাথে নিজেদেরকে খাপ খাইয়ে নিতে হবে। এছাড়া নুতুন নুতুন ফিচারগুলোকে স্ব স্ব  বিজনেস কৌশলে প্রয়োগ করাটা অতিব জরুরী।

আপনি যদি আপনার অনলাইন বিজনেসের জন্য ফেসবুক স্টোরি ব্যবহার করার পরিকল্পনা করে থাকেন তবে এই ব্লগ পোস্টটি পড়ার মাধ্যমে এই বিষয়ে একটা বিস্তর ধারণা পাবেন।

ফেসবুক স্টোরি কি ? (What is Facebook Story?)

সাধারণত ফেসবুকে আপনার বন্ধু এবং আপনি যে বিজনেজ পেইজেকগুলোকে ফলো করেন তাদের স্টোরিগুলো আপনার নিউজফিডে আসবে। সেটা ফেসবুকের ডেক্সটপ ও মোবাইল দুই সংস্করণের জন্য প্রযোজ্য।

ফেসবুক স্টোরিকে ব্যবহার করে ব্যবহারকারীদের সাথে ফটো, ভিডিও ও অ্যানিমেশন শেয়ার করা যায়। যা ২৪ ঘন্টা পর ফেসবুক সয়ংক্রিয়ভাবে মুছে দেয়। কিন্তু এই নির্দিষ্ট সময়কে ব্যবহার করে আপনি চাইলেই খুব সহজে টার্গেট অডিয়েন্সের কাছে পৌছতে পারবেন। 

ফেসবুক স্টোরি কেন আপনার অনলাইন বিজনেসের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ( Why Facebook is Important to Boost Your Online Business?)

সাম্প্রতিক সময়ে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তাদের এলগরিদমে অনেক পরিবর্তন এনেছে। যার ফলে বিজনেস পেজের পোস্টের অর্গানিক রিচ আগের তুলনায় অনেক অংশে কমে গেছে । যার ফলে বর্তমানে সময়ে ফেসবুক স্টোরির গুরুত্ব অনেক বেড়ে গেছে। 

যদি একটি পেইজে ১০০০ ফলোয়ার থাকে তাহলে অর্গানিকভাবে প্রতি পোস্টের মাধ্যমে সর্বোচ্চ ২ থেকে ৩ শতাংশ কাস্টমারের কাছে পৌছানো সম্ভব। স্বাভাবিকভাবেই এই অল্প পরিমাণ রিচ থেকে যথেষ্ট পরিমান সেল পাওয়া দুরহ ব্যাপার । সেজন্য ফেসবুক স্টোরিই হতে পারে আপনার ঝিমিয়ে পড়া অনলাইন বিজনেসকে বেগবান করার জন্য শেষ চিকিৎসা। 

সাম্প্রতিক সময়ে ফেসবুক স্টোরির ব্যবহার উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। সমগ্র বিশ্বজুড়ে প্রায় ৫০০ মিলিয়ন ফেসবুক ব্যবহারকারী স্টোরি ব্যবহার করে। যার অর্থ দাঁড়ায় যদি ফেসবুক স্টোরি দেয়ার ক্ষেত্রে  যদি সঠিক পন্থা ব্যবহার করা যায় তাহলে বিশাল একটা অডিয়েন্সের কাছে পৌঁছানো সম্ভব।

কিভাবে ফেসবুক স্টোরির জন্য কন্টেট তৈরি করবেন (How to Create Amazing Content for Facebook story )

প্রথমত স্টোরিতে প্রোডাক্ট সহ আনুসাঙ্গিক বিষয়গুলো সঠিকভাবে হাইলাইট করতে হবে যাতে অল্প সময়ের মধ্যে গ্রাহকের মনে ইম্প্রেশন সৃষ্টি করতে পারে। ক্যানভা, ইনশটের মাধ্যমে ফ্রিতে প্রফেশনালভাবে স্টোরি ডিজাইন করতে পারবেন। ফেসবুক এলগোরদিম নুতুন ছবি পছন্দ করে। পুরনো ছবি ব্যবহার করলে সেটা ফেসবুক ইমেজ ক্রলারের সাহায্যে খুব সহজেই ধরতে পারে, ফলসরুপ ঔই ছবির রিচ কমিয়ে দেয়। সেজন্য সবসময় প্রোডাক্টের নুতুন ছবি তুলে স্টোরিতে ব্যবহার করাই শ্রেয়। সেক্ষত্রে দীর্ঘমেয়াদী ভালো রেজাল্ট পেতে হলে প্রোডাক্ট ফটোগ্রাফি নিয়ে প্ল্যানমাফিক কাজ করতে হবে।

ডেক্সটোপ বা ম্যাসেঞ্জার বা ফেসবুক মোবাইলে এপ্লিকেশনের মাধ্যমে স্টোরি তৈরি করে নিতে পারেন। তবে ফেসবুক মোবাইল এপ্লিক্যাশন স্টোরি ডিজাইন করার জন্য সর্বোচ্চ সুবিধা  দিয়ে থাকে।

ফেসবুক একটি প্লাস(+) বাটন অপশন আছে যেটি আপনার পেইজের প্রোফাইল ছবির মধ্যে প্রদর্শন করে। প্লাস বাটন ক্লিক করে আপনি ক্রিয়েট স্টোরি অপশনের মাধ্যমে আপনার চাহিদামত ছবি দিতে পারবেন।

স্টোরিতে অবশ্যই প্রোডাক্টের নাম উল্লেখ করে দিতে হবে। স্টোরি ডিজাইন করার সময় আরেকটা গুরুত্বপূর্ণ জিনিস মাথায় রাখতে হবে, প্রোডাক্টের মূল্য স্টোরিতে কোনভাবেই ব্যবহার করা যাবেনা। স্টোরি ডিজাইন করার জন্য ফেসবুক অনেকগুলো ফ্রি সুবিধা দিয়ে থাকে যেগুলোকে ব্যবহার করে আপনার কন্টেন্টকে জনপ্রিয় করতে পারবেন  ৷ 

কিভাবে ফেসবুক স্টোরি অনলাইন বিজনেসের সেল বাড়াতে সাহায্য করবে (How Facebook Story Can Help To Grow Sell of Online Business)

📌ফেসবুক স্টোরির জনপ্রিয়তা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে সেহেতু বিজনেজ পেজে এর নিয়মিত ব্যবহার আপনার ব্যবসার রিচ অনেকাংশে বাড়াতে সাহায্য করবে।

📌আপনার পেইজে কোন অফার থাকলে সেই অফারের প্রচারণা স্টোরিকে ব্যবহার করে করতে পারেন। 

📌স্টোরিতে আপনার প্রোডাক্টের ছবিটি আকর্ষনীয়ভাবে ক্রেতার সমক্ষে প্রদর্শন করতে হবে। 

📌 প্রতিদিন অন্তত ৩-৪টা স্টোরি পেইজের স্টোরিতে ব্যবহার করলে পেইজের অডিয়েন্স রিচ নিশ্চিতভাবে বাড়বে।

📌ফেসবুক স্টোরি একাধারে পেইজের ফলোয়ারদের কাছে পৌছতে সাহায্য করবে এবং একইসাথে নুতুন আগ্রহী কাস্টমারদের আকৃষ্ট করতে সাহায্য করবে। 

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *