ছাতকে মাইকে ঘোষণা দিয়ে দু’গ্রামবাসীর সংঘর্ষ, আহত ৭০

মোট পড়া হয়েছে 68 

সুনামগঞ্জের ছাতকে মাইকে ঘোষণা দিয়ে দুই গ্রামের লোকজনে মধ্যে সংঘর্ষে অন্তত ৭০ জন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার সকালে উপজেলার কালারুকা ইউনিয়নের হাসনাবাদ গ্রামের মাঠে হাসনাবাদ ও করছখালী গ্রামের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে।

প্রায় দুই ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে ইট-পাটকেল ও দেশিও অস্ত্র ব্যবহার করে দুইপক্ষের লোকজন।

সংঘর্ষে গুরুতর আহত হাসনাবাদ গ্রামের কদরুল ইসলাম, সদরুল ইসলাম, আরশ আলী, শামছু মিয়া, সাগর আহমদ, করছখালী গ্রামের শামসুল হক, সফির উদ্দিন সাদ্দাম, বিলাল আহমদ, নুমান আহমদ ওয়ারিছ আলী, সফিকুল হক, সাহাব উদ্দিনসহ ২০ জনকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এছাড়া আহত নুরুল ইসলাম, সুজন মিয়া, রইছ আলী, বাহা উদ্দিন শাহী, খালিদ মিয়া, আব্দুল হাই, আরকান আলী, হাবিবুর রহমান হবীল, জয়নাল মিয়া, নুর আলম, আব্দুর রহিম, আব্দুল আউয়াল, কবির আহমদ, আব্দুল আলীম, জাহির আলী, ছোরাব আলী, মামুন আহমদ, হাফিজুর রহমান, ওলিউর রহমান, লোকমান আহমদ, আব্দুল বাসিত, দুলাল আহমদ, সাইদুল মিয়া, খছরু মিয়া, আজাদ মিয়া, আব্দুস সবুর, খালেদ মিয়াসহ বেশ কয়েকজনকে ছাতক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা যায়, সোমবার সন্ধ্যায় স্থানীয় হাসনাবাদ বাজারে গাড়ি পার্কিং নিয়ে করছখালী গ্রামের  ওলিউর রহমান ও হাসনাবাদ গ্রামের রুহুল আমিনের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার জের ধরে  মঙ্গলবার সকালে মাইকে ঘোষণা দিয়ে দুই গ্রামের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। দুই ঘন্টা সংঘর্ষের পর স্থানীয় লোকজনের মধ্যস্থতায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

ঘটনার পর ছাতক থানার ওসি তদন্ত মিজানুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। ছাতক থানার ওসি নাজিম উদ্দিন সংঘর্ষের বিষয় নিশ্চিত করে বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থলে রয়েছে।

সূত্রঃ সিলেটভিউ২৪

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *